1. babuibasa@gmail.com : editor :
  2. rokunkutubdia@gmail.com : reporter :
  3. rokunkutubdia@yahoo.com : Rokiot Ullah : Rokiot Ullah
বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০৫:১৯ অপরাহ্ন

কালারমারছড়া আদালতের নিষেধাজ্ঞা জমিতে দু গ্রুফের মুখামুখি অবস্থান, সংর্ঘষের আশঙ্কা

  • সর্বশেষ আপডেট : মঙ্গলবার, ১৭ নভেম্বর, ২০২০
  • ৪১ জন সংবাদটি পড়েছেন

মহেশখালী প্রতিনিধি,
কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নের আঁধার ঘোনা গ্রামে বিজ্ঞ কক্সবাজার জুড়িসিয়াল আদালতের নিষেধজ্ঞা অমান্য করে জোরপূর্বক বসতবাড়ীর জমি দখলের অপচেষ্টা চালাচ্ছে প্রভাবশালী মহল। প্রতিকার পেতে প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে মহেশখালী থানায় বিষয়টি অবহিত করেছেন স্থানীয় মৃত মৌলভী নেজামুল হকের পুত্র নুরুল আবছার গংরা। ৫৮৬ নং খতিয়ানে দাগ নং ৭ হাজার ১০০, জায়গার পরিমাণ ৯০ কড়া। উক্ত জায়গা নিয়ে চলছে তালবাহানা। এক পক্ষ বলছে জায়গা তাদের পৈত্রিক সূত্র অপর পক্ষ একই দাবী তুলেছে।
জানাগেছে, স্থানীয় মৃত নেজামুল হকের পুত্র রুহুল কাদের বাবুল বাদী হয়ে এঘটনায় আদালতে ওই জমির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেন।
তবে আদেশ হয় যে বাদীকে নালিশী জমি হতে নিস্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বেদখল না করার জন্য বিবাদীকে নির্দেশ দেয় আদালত। তবে নিস্পত্তি না করে ওই জমি দখলে নিয়ে রবি টাওয়ারের জন্য জায়গা ভাড়া দিচ্ছেন বিবাদী একই এলাকার মৃত জাবেরের পুত্র হান্নান গংরা। এতে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তোজনা দেখা দিয়েছে। আজ ১৭ নভেম্বর মঙ্গলবার সকাল থেকে দুই গ্রুফ মুখামুখি অবস্থান করায় সংর্ঘষের আশঙ্কা করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।
এব্যাপারে পরস্পর বিরুদ্ধী বক্তব্য পাওয়া গেছে।

নুরুল আবছার বলেন, আমাদের পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া জমির উপর আদালতের নিষেধজ্ঞা থাকলে হান্নান গংরা জোরপূর্বক ক্ষমতার প্রভাব দেখিয়ে জমিটি দখলে নিয়ে রবি কর্তৃপক্ষদের ভাড়া দিয়ে টাওয়ার নিমার্ণের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। আমি প্রশাসনের হস্তেক্ষেপ কামনা করছি। অপর পক্ষ হান্নান বলেন,যুগ যুগ ধরে জমিটি আমরা ভোগ করে আসছি। এটা আমার পিতার সূত্রে পাওয়া জায়গা যা স্থানীয় বাসিন্দারা অবগত রয়েছেন। তবে অপর পক্ষ হান্নানের দাবি এটি তার পৈত্রিক সূত্রে জমি। তিনি উক্ত জমিতে রবি টাওয়ারের জন্য ভাড়া দিয়ে কাজ শুরু করলে কাজ বন্ধ করতে চেষ্টা চালাচ্ছে।
তবে সংঘর্ষ ঠেকাতে দুই পক্ষকে সমঝোতার দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় এলাকাবাসী।
এমতাবস্থায় শান্তি রক্ষায় উভয় পক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানিয়েছেন সচেতন মহল।
এবিষয়ে কালারমারছড়া পুলিশ ফাঁড়ীর আইসি এস আই জহিরুল ইসলাম বলেন, জমির বিষয়টা নিয়ে একটি পক্ষ অভিযোগ করছিল। তবে সেটি খতিয়ে দেখতে থানায় পাঠানো হয়েছে।

আপনি সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ চট্টগ্রাম টুডে কর্তৃক সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews
error: Content is protected !!