1. balaram.cox@gmail.com : balaram das : balaram das
  2. babuibasa@gmail.com : editor :
  3. news24nazrul@gmail.com : Nazrul Islam : Nazrul Islam
  4. rokunkutubdia@gmail.com : reporter :
  5. rokunkutubdia@yahoo.com : Rokiot Ullah : Rokiot Ullah
শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪:০৩ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
কালারমারছড়ার নোনাছড়িতে ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী অপহরণের অভিযোগ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হলদিয়াপালং ইউনিয়ন শাখার দ্বি-বার্ষিক কাউন্সিল সম্পন্ন উখিয়ায় নতুন ইউএনও নিজাম উদ্দিন আহমেদ উখিয়ার মানুষ সহযোগিতা পরায়ণ বলেছেন সদ্য বিদায়ী ইউএনও নিকারুজ্জামান চৌধুরী উখিয়ায় র‍্যাবের অভিযানে ১৯৬০০ পিস ইয়াবাসহ আটক দুই রোহিঙ্গা রোহিঙ্গা সংকট এবং করোনা মোকাবিলায় ইউএনও নিকারুজ্জামান ছিলেন খাঁটি দেশপ্রেমিক-এমপি শাহীন রাজাপালং ইউপির ৯ নং ওয়ার্ডের উপ-নির্বাচনে একই পরিবারের মাতা-ছেলে-জামাতার মনোনয়ন নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ওসি মুহাম্মদ অালমগীর হোসেন জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ নির্বাচিত কুতুবদিয়ায় চৌমুহনী বাজারে মাদরাসা মার্কেটে ১৪ দোকান পুড়ে ছাই পেকুয়ার শিলখালীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধে পিতাপুত্রকে কুপিয়ে আহত করেছে।

উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্পে রোহিঙ্গা দু’সন্ত্রাসী গ্রুপের মধ্যে দফায়-দফায় সংঘর্ষ,গোলাগুলি, আহত-৫

  • সর্বশেষ আপডেট : রবিবার, ৩০ আগস্ট, ২০২০
  • ১২ জন সংবাদটি পড়েছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক,উখিয়া(কক্সবাজার)

কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবিরে রোববার সকাল ১১থেকে ১টা পর্যন্ত দফায়-দফায় রোহিঙ্গা দুই সন্ত্রাসী গ্রুপের মধ্যে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ৫ জন আহত এবং ৩জন রোহিঙ্গা প্রতিপক্ষ গ্রুপের হাতে অপহরণের শিকার হয়েছে বলে সুত্র জানিয়েছে।

কুতুপালং ক্যাম্পের রোহিঙ্গা নেতা নুর বশর জানান, দীর্ঘদিন ধরে রেজিষ্ট্রার্ড ও আনরেজিষ্ট্রার্ড ক্যাম্পের দুই গ্রুপের মধ্যে চাঁদাবাজি, অপহরণ, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে গত বুধবার থেকে কয়েক দফা গোলাগুলি ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সর্বশেষ রোববার আবারো ঘটনা ঘটে লম্বাশিয়া মাস্টার মুন্না এবং হাফেজ জাবের ও সাইফু্র গ্রুপের মধ্যে। এতে মুন্না গ্রুপের ৫জন আহত এবং আরসা নেতা মাষ্টার আবুল কালাম সহ ৩জন আপহরণ হওয়ার সংবাদ পাওয়া গেলেও তাৎক্ষণিক তাদের নাম ঠিকানা পাওয়া যায়নি৷ তবে আহতদের কুতুপালং এমএসএফ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে৷

এর আগে শনিবার সংঘর্ষের ঘটনায় নারিসহ ৩জন আহত হয়েছে। এসময় দা’র কোপে আহত ২জন মহিলাকে কুতুপালং এমএসএফ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আর গুলিবিদ্ধ নুর আলমকে প্রথমে কক্সবাজার পরে চট্টগ্রাম হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। সে কুতুপালং টু-ইস্ট ক্যাম্পের আহমদ হোসেনের ছেলে। তার অবস্থা আশংকাজনক বলে সুত্র জানিয়েছে।কুতুপালং ক্যাম্প ইনচার্জ মোঃ খলিলুর রহমান খান নিকট জানতে চাইলে তিনি ছুটিতে রয়েছেন বলে ফোন কেটে দেন। ক্যাম্পে বিবাদমান দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় তুমুল উত্তেজনা বিরাজ করছে।যেকোন মুহুর্তে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতে পারে বলে সাধারণ রোহিঙ্গারা আশংকা করছেন।

আপনি সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ চট্টগ্রাম টুডে কর্তৃক সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews
error: Content is protected !!