1. babuibasa@gmail.com : editor :
  2. news24nazrul@gmail.com : Nazrul Islam : Nazrul Islam
  3. rokunkutubdia@gmail.com : reporter :
  4. rokunkutubdia@yahoo.com : Rokiot Ullah : Rokiot Ullah
শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ০৭:২৩ অপরাহ্ন

ফারুক এন্টারপ্রাইজের বিরুদ্ধে মাতারবাড়ী কয়লাবিদ্যুৎ প্রকল্পের  শ্রমিকদের টাকা কর্তনের অভিযোগ

  • সর্বশেষ আপডেট : শনিবার, ২২ আগস্ট, ২০২০
  • ৫৬ জন সংবাদটি পড়েছেন

মহেশখালী প্রতিনিধি

মাতারবাড়ী কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পের পস্কো কোম্পানির অধীনে কাজ করা সাব ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ফারুক এন্টারপ্রাইজের বিরুদ্ধে শ্রমিকদের টাকা কর্তন সহ নানা অনিয়মের অভিযোগ ওঠেছে।

জানা যায়, মাতারবাড়ী কয়লাবিদুৎ প্রকল্পের অন্যতম কোম্পানি পস্কোর অধীনে কাজ করা স্থানীয় সাব-ঠিকাদার হিসাবে কাজ করে আসছেন ফারুক এন্টারপ্রাইজ। তার অধীনে প্রায় ৬০-৮০ জন মাতারবাড়ীর সাধারণ লেবার দৈনিক বা ঘন্টার মজুরি ভিত্তিতে কাজ করে। এদিকে সাধারণ লেবারের টাকা নিয়মিত পরিশোধ না করে বিভিন্ন ধরনের টালবাহানা শুরু করে শ্রমিকের টাকা আত্মসাৎ করে আসছে। এদিকে শ্রমিকেরা নিয়মিত কাজের মজুরি না পেয়ে অনহারে দিনযাপন করে আসছে। আর শ্রমের মজুরি চাইলে চাকরিচুত্য করার হুমকি সহ নানা ধরণের হয়রানি করে বলে জানা যায়। এদিকে সময়মতো মজুরি না পেয়ে এই সাব ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের মালিক ফারুক এর বিরুদ্ধে স্থানীয় শ্রমিকদের বেতন কর্তন ও মাসিক বেতন না দেওয়ার অভিযোগ করেছেন স্থানীয় ভুক্তভোগী শ্রমিকরা। ফারুক এন্টার প্রাইজের মালিক ফারুক পেশি শক্তির প্রভাব দেখিয়ে শ্রমিকদের কাছ থেকে কমিশন বাণিজ্যের অভিযোগের পাহাড় দিন দিন দীর্ঘ হচ্ছে। এতে বেরিয়ে আসতে শুরু করেছে নানা ধরনের তথ্য। ফলে স্থানিয়দের মাঝে ক্ষোভের ধানা বাঁধতে শুরু করেছে। এদিকে আরও জানা যায় ১০ ঘন্টার মজুরি বাবদ ৬০০ টাকা করে নিলেও শ্রমিকদের দেয় ৫০০ টাকা। তাছাড়া শ্রমিকের সুরক্ষা ও টিপিন ভাতা বলে খরচ ৩০-৪০ টাকা। বাকী টাকা লোপট সহ নানা ধরনের হয়রানীর

ফারুক এন্টার প্রাইজে কর্মরর্ত কমন লেবার রিয়াজ, আরিফ, হাবিসসহ অনেকে জানান, আমরা কয়েক বছর ধরে ফারুক এন্টারপ্রাইজের মাধ্যমে কাজ করে আসলে প্রায় সময় টাকা দিবে বলে ও দেয় না। একশত টাকা দিয়ে আমাদের দায় শেষ করে। তিনি পস্কো কোম্পানীতে থেকে যে টাকা উত্তোলন করে তার সিংহ ভাগ নিজে পকেস্থ করে।
ভোক্তভোগি শ্রমিকরা এব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পস্কো লিমিটেড কর্তৃপক্ষ বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন বলেও জানা গেছে।

অন্যদিকে ফারুক এন্টারপ্রাইজে কর্মরত মোঃ বাবর বলেন আমরা কাজ করি কিছুটা মজুরি পেতে বিলম্ব হলেও পাওনা টাকা পেয়ে থাকি।

এব্যাপারে অভিযুক্ত ফারুক এন্টার প্রাইজের মালিক ফারুকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান যারা অভিযোগ করছে তাদের মধ্যে কয়েকজনের টাকা আমি ইতিমধ্যে পরিশোধ করেছি। স্থানীয় একটি চক্র ষড়যন্ত্র করে আমার মানক্ষুণ করার চেষ্টা করছে বলে জানান।

এবিষয়ে পস্কোর এডমিন সুমনের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও মুঠোফোনে সংযোগ না পাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

 

আপনি সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ চট্টগ্রাম টুডে কর্তৃক সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews
error: Content is protected !!