1. balaram.cox@gmail.com : balaram das : balaram das
  2. babuibasa@gmail.com : editor :
  3. news24nazrul@gmail.com : Nazrul Islam : Nazrul Islam
  4. rokunkutubdia@gmail.com : reporter :
  5. rokunkutubdia@yahoo.com : Rokiot Ullah : Rokiot Ullah
বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ০৪:৫২ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
প্রিয় কুতুপালং বাসির প্রতি মেম্বার প্রার্থী হেলাল উদ্দিনের কৃতজ্ঞতা শিকার এবং আরজি উখিয়ায় সাংবাদিকদের সাথে ডিআইজির মতবিনিময় মাদকের বিরুদ্ধে জিরো ঘোষণা, শুরু হবে অভিযান স্থানীয় হতদরিদ্রদের জীবনমান উন্নয়ন ও ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য কাজ করে যাচ্ছে ইউনাইটেড পারপাস উখিয়া আওয়ামী লীগের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উদযাপন কুতুপালংয়ে স্বশস্ত্র রোহিঙ্গাদের চাঁদা দাবী, স্থানীয় বাড়ি,৭ সিএনজি ভাংচুর-লুটপাট,৮ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি ধর্ষকদের বিচারের দাবিতে নবঘোষিত হাটহাজারী উপজেলা, পৌরসভা ও কলেজ ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ উখিয়া উপজেলা মহিলা আ’লীগের আয়োজনে দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন পালিত প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কক্সবাজার জেলা পরিষদের সদস্য মাস্টার রহুল আমিন উখিয়ায় আওয়ামীলীগে হামিদুল হক চৌধুরীর নেতৃত্বে শেখ হাসিনার জন্মদিন পালিত ঘুমধুমে সীমানা বিরোধের জেরে ইয়াবা কারবারিদের হামলায় নারীসহ আহত-২

তিন মাস পর কর্মস্থলে হাজির হলেন কুতুবদিয়া উপজেলা প.প. কর্মকর্তা

  • সর্বশেষ আপডেট : সোমবার, ১৫ জুন, ২০২০
  • ৩১৫ জন সংবাদটি পড়েছেন

বিশেষ প্রতিনিধি, কুতুবদিয়াঃ

বিগত কিছু দিন ধরে স্থানীয় সংবাদকর্মীদের রোষানলে পড়ে দীর্ঘ তিন মাস পর অফিসে হাজির হতে বাধ্য হয়েছেন কুতুবদিয়া উপজেলা প.প. কর্মকর্তা বিধান কান্তি রুদ্র। বিষয়টি ‘টক অব দ্য কুতুবদিয়া’ পরিণত হয়েছে।

সরেজমিনে অফিসে গিয়ে জানা গেছে, রবিবার সকাল ১১ টা নাগাদ তিনি অফিসে আসলেও হাত ব্যাগ রেখে অফিসের অন্যান্য কর্মকর্তাদের গালিগালাজ করে ট্র্যাজারিতে যাওয়ার কথা বলে অফিস থেকে বেরিয়ে যান তিনি। যাওয়ার সময় অধস্তন কর্মচারীদের অশালীন গালিগালাজ করে ধমক দেন।

বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদে অফিস কম্পাউন্ডে ছাগল কোথা থেকে এসেছে তার ব্যাখ্যা কর্মচারীদের দিতে হবে, এমন ধমক দিয়ে অফিস থেকে বেরিয়ে পড়েন তিনি।

ওইদিন দুপুর১২ টায় অফিস চলাকালীন সময়ে গিয়েও পাওয়া যায়নি তাকে। পরে বেলা ১ টায় গিয়েও ফিরে আসে সংবাদকর্মীরা। আরও ১ ঘন্টা অপেক্ষার পর বেলা ২ টায় তিনি অফিসে পৌঁছে সংবাদকর্মীদের উপস্থিতিতে কর্মচারীদের আবারও শাসান বিধান কান্তি।

এসময় সাংবাদিকের উপস্থিতিতে দায়িত্বরত আনসার সদস্য শফিসহ অফিসের ২/৩ জন কর্মচারীকে জেরা করে বিষয়টি জানতে চান তিনি।

উপজেলা পঃপঃ কর্মকর্তা বিধান কান্তি রুদ্র বলেন, ১৯৮৭ সাল থেকে তিনি এই অধিদপ্তরে চাকুরী করেন। এতদিন লকডাউনের কারণে অফিসে আসতে পারেননি। এতে কি ক্ষতি হয়েছে। তবে অফিসের কার্যক্রম একদিনও বন্ধ ছিল না বলেও দাবী করেন তিনি।

এইদিকে সম্প্রতি নিয়োগকৃত ৫০ জন মাঠকর্মীর কাজও নিয়মিত তদারকি করা হচ্ছে বলে জানান।

তিনি বলেন, করোনাকালীন বেশি কাজ ও রোগিদের সেবা না করতে প্রশাসনের নির্দেশনা ছিল। আগামী ২০ তারিখ থেকে কাজ পুরোদমে শুরু করবো।

অভিযোগ রয়েছে, সরকারি কর্মকর্তা বিধান কান্তি রুদ্র গত ৩ মাসে একদিনও উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ে আসেননি। শনিবার বেলা ১২ টার দিকে কয়েকজন সংবাদকর্মী উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ে গিয়ে দেখেন মূল কার্যালয়ের বাইরে তালা লাগানো। গেইটে মুখে আরেকটি তালা লাগিয়ে সেখানে ছাগল পালন করা হচ্ছে। বিষয়টি সাংবাদিকদের নজরে এলে ছবিটি ধারণ করেন তারা। স্থানীয় সংবাদকর্মীরা নিজেদের ফেইসবুকে ভিন্ন ভিন্ন মন্তব্য দিয়ে ছবিটি পোস্ট করেন। মুহূর্তেই ছবিটি ভাইরাল হয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। ছবি সম্পর্কে জানতে চেয়ে বিভিন্ন ধরনের কমেন্টস করেছে অনেকে।

এ বিষয়ে বিধান কান্তি রুদ্র আরো জানান, তিনি হাঁটুতে ব্যথার কারণে আপাততঃ কুতুবদিয়ায় অফিস করছেন না। বিষয়টি উধ্বর্তন কর্মকর্তা জানেন। কুতুবদিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তার কয়েকজন লোক তার বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছেন এবং তারাই আমার অফিসে ছাগল বেঁধে সাংবাদিকদের ছবি দিয়ে সংবাদ প্রচার করান। উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার সাথে আমার একটু ভুল বুঝাবুঝি ছিল, তা আজ-কালের মধ্যে যেভাবে হোক সমাধান করবো।প্রয়োজনে উনার যাবতীয় দাবী আমি মেনে নিবো। হাসপাতালের যে ওটি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে,তা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের। হাসপাতালে নিজস্ব ওটি গুদাম ঘর হিসেবে অকেজোভাবে ফেলে রেখেছে। আর আমাদের ওটি নিয়ে টানাটানি শুরু করেছে। বিষয়টি উধ্বর্তন কেউ তদন্ত করলে বেরিয়ে আসবে এবং তা দিবালোকের মত সত্য।

প্রসঙ্গতঃ বিগত ২২ নভেম্বর ২০১০ সাল থেকে কুতুবদিয়ায় অতিরিক্ত দায়িত্বে পালন করে আসছেন বিধান কান্তি রুদ্র। তার মূল দায়িত্ব চকরিয়া উপজেলায়। তার শাশুড় বাড়ী লোহাগাড়া হলেও পরিবার পরিজন নিয়ে তিনি চট্টগ্রাম শহরের এনায়েত বাজার এলাকায় থাকেন। চাকুরীর সুবাধে তিনি নিজ বাড়ি চকরিয়া কাকারায় একা বসবাস করেন।কাকারা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বলেও দাবী করেন তিনি।

আপনি সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ চট্টগ্রাম টুডে কর্তৃক সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews
error: Content is protected !!