1. balaram.cox@gmail.com : balaram das : balaram das
  2. babuibasa@gmail.com : editor :
  3. news24nazrul@gmail.com : Nazrul Islam : Nazrul Islam
  4. rokunkutubdia@gmail.com : reporter :
  5. rokunkutubdia@yahoo.com : Rokiot Ullah : Rokiot Ullah
শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:১৪ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
কালারমারছড়ার নোনাছড়িতে ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী অপহরণের অভিযোগ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হলদিয়াপালং ইউনিয়ন শাখার দ্বি-বার্ষিক কাউন্সিল সম্পন্ন উখিয়ায় নতুন ইউএনও নিজাম উদ্দিন আহমেদ উখিয়ার মানুষ সহযোগিতা পরায়ণ বলেছেন সদ্য বিদায়ী ইউএনও নিকারুজ্জামান চৌধুরী উখিয়ায় র‍্যাবের অভিযানে ১৯৬০০ পিস ইয়াবাসহ আটক দুই রোহিঙ্গা রোহিঙ্গা সংকট এবং করোনা মোকাবিলায় ইউএনও নিকারুজ্জামান ছিলেন খাঁটি দেশপ্রেমিক-এমপি শাহীন রাজাপালং ইউপির ৯ নং ওয়ার্ডের উপ-নির্বাচনে একই পরিবারের মাতা-ছেলে-জামাতার মনোনয়ন নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ওসি মুহাম্মদ অালমগীর হোসেন জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ নির্বাচিত কুতুবদিয়ায় চৌমুহনী বাজারে মাদরাসা মার্কেটে ১৪ দোকান পুড়ে ছাই পেকুয়ার শিলখালীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধে পিতাপুত্রকে কুপিয়ে আহত করেছে।

পেকুয়ায় আদালতের রায় অমান্য করে জমি দখলে রেখে হয়রানি করার অভিযোগ

  • সর্বশেষ আপডেট : রবিবার, ১৪ জুন, ২০২০
  • ২৫৬ জন সংবাদটি পড়েছেন

পেকুয়া সংবাদদাতা:

কক্সবাজারের পেকুয়ায় ক্রয়কৃত জমি জবর দখলে রাখার পর মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমনকি স্থানীয় ইউপি কার্যালয় থেকে দেয়া রায় ও আদালতের আদেশও অমান্য করে চলছেন জমি জবর দখলকারীরা।

উজানটিয়া ইউপির নতুনঘোনা পেকুয়ার চর এলাকার মৃত মুহাম্মদ হোছনের স্ত্রী ফরিজা বেগমের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ করেছেন মৃত শফিকুর রহমানের ছেলে নেছার উদ্দিন, বদিউল আলম ও বাদশা মাঝি।

তারা বলেন, ফরিজা বেগম দলিলমূলে ২০শতক জমি পাওনাদার। কিন্তু তিনি অবৈধভাবে দলিল নেন ২৮শতক, পরিমাপে জমিও রয়েছে ২০শতক। এরই মাঝে তার স্বামী জীবিত থাকা অবস্থায় ১৯৯৫ সালে সাইক্লোন সেল্টারের নামে ২০শতক জমি দান করে দেন।

দলিল যেহেতু ২৮শতকের সেহেতু তারা আর জমি পাওয়া থাকে ৮শতক মাত্র। অথচ বসতবাড়িসহ তারা জমি জবর দখল করে রেখেছে ৫৪শতক। এবিষয়ে বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করলে রায়-ডিগ্রি তাদের পক্ষে যায়। এরপরও ওই জমি ফরিজা বেগম দখল না ছাড়লে স্থানীয় ইউপি কার্যালয়ে অভিযোগ দায়ের করা হয়। সেখানে তারা কোন ধরণের কাগজপত্র দেখাতে পারে নি। তার রায়ও নেছার উদ্দিন গংয়ের পক্ষে যায়। থানায় এনিয়ে বৈঠক হয়। বৈঠক পরবর্তি পরিমাপ করা হয়। পরিমাপের সময় কাগজপত্র বিশ্লেষণ করলে ফরিজা বেগমের কোন ধরণের জমি নাই তা প্রমাণিত হয়।

নেছার উদ্দিন বলেন, আমরা দলিলমূলে জমি ক্রয় করে ভোগদখল করে আসছি। এই জমি থেকে বেশ কিছু জমি ফরিজা বেগম জবর দখল করে নেয়। গত শুক্রবার তারা আবারো সংঘবদ্ধ হয়ে দুই হাত জমি জবর দখল করে নেয়। এর প্রতিবাদ করায় তারা আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করার জন্য মিথ্যা অজুহাত দিচ্ছেন। স্থানীয় প্রশাসনের প্রতি বিনীত অনুরোধ ঘটনাটি সঠিকভাবে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হউক।

স্থানীয় ইউপি সদস্য শাহাজামাল বলেন, জমি জবর দখল করার অভিযোগ দেন ফরিজা বেগম। শুক্রবার ঘটনাস্থলে গিয়ে দুই পক্ষকে নিভৃত করে স্থানীয়ভাবে বৈঠক করে সমাধা করার কথা বলি। এক্ষেত্রে নেছার গং বৈঠকে বসতে রাজি থাকলেও ফরিজা বেগম বৈঠকে হাজির হয় নাই। এর আগেও স্থানীয় ইউপি কার্যালয়ের বৈঠকে ফরিজা বেগম কোন ধরণের কাগজপত্র দেখাতে পারে নাই।

আপনি সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ চট্টগ্রাম টুডে কর্তৃক সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews
error: Content is protected !!