1. balaram.cox@gmail.com : balaram das : balaram das
  2. babuibasa@gmail.com : editor :
  3. news24nazrul@gmail.com : Nazrul Islam : Nazrul Islam
  4. rokunkutubdia@gmail.com : reporter :
  5. rokunkutubdia@yahoo.com : Rokiot Ullah : Rokiot Ullah
শুক্রবার, ০২ অক্টোবর ২০২০, ১২:২৩ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিষিদ্ধ ঘোষিত আল মারকাজুল ইসলামীর ১৮ বস্তি উচ্ছেদ মহেশখালী মাতারবাড়ী শহীদ জিয়া ছাত্র পরিষদ কমিঠির অনুমোদন উখিয়া উপজেলার নতুন ইউএনও নিজাম উদ্দিন আহমেদ যোগদান করেছে আজ মহেশখালীর ঝাপুয়া স্মরণকালের বৃহত্তম জানাজা গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী (ভুট্টোর), চিরনিদ্রায় শায়িত মহেশখালীর ঝাপুয়া স্মরণকালের বৃহত্তম জানাজা গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী (ভুট্টোর), চিরনিদ্রায় শায়িত প্রিয় কুতুপালং বাসির প্রতি মেম্বার প্রার্থী হেলাল উদ্দিনের কৃতজ্ঞতা শিকার এবং আরজি উখিয়ায় সাংবাদিকদের সাথে ডিআইজির মতবিনিময় মাদকের বিরুদ্ধে জিরো ঘোষণা, শুরু হবে অভিযান স্থানীয় হতদরিদ্রদের জীবনমান উন্নয়ন ও ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য কাজ করে যাচ্ছে ইউনাইটেড পারপাস উখিয়া আওয়ামী লীগের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উদযাপন কুতুপালংয়ে স্বশস্ত্র রোহিঙ্গাদের চাঁদা দাবী, স্থানীয় বাড়ি,৭ সিএনজি ভাংচুর-লুটপাট,৮ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

পাকিস্তানে বিক্রি হচ্ছে পঙ্গপাল!

  • সর্বশেষ আপডেট : শনিবার, ৩০ মে, ২০২০
  • ৮৭ জন সংবাদটি পড়েছেন

পাকিস্তানে হানা দিয়েছে পঙ্গপাল। দেশটিতে হাজার হাজার হেক্টর জমির ফসল নষ্ট করছে এটি। এবার পঙ্গপাল ধরে তা বিক্রি করছেন পাকিস্তানের ওকারা জেলার কর্মকর্তারা। এটি দিয়েই তৈরি হচ্ছে উচ্চ প্রোটিন সমৃদ্ধ হাঁস-মুরগির খাবারও।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম স্ক্রল ইনের  খবরে বলা হয়, পাকিস্তানের ওকারা জেলায় প্রতি কেজি পঙ্গপাল এখন ২০ রুপি দরে বিক্রি হচ্ছে। এ পঙ্গপাল পেস্ট করে হাঁস-মুরগির খাবার (ফিড) তৈরিতে প্রোটিন হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। পাইলট প্রকল্প হিসেবে হাঁস-মুরগির এ খাবার তৈরি করা হচ্ছে।

পাকিস্তানের খাদ্য সুরক্ষা ও গবেষণা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা মুহাম্মদ খুরশিদ এবং পাকিস্তান কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের বায়োটেকনোলজিস্ট জোহর আলী পঙ্গপাল ব্যবহার করে এ ফিড তৈরির কৌশল বের করেছেন।

জোহর আলী বলেন, ‘কেউ ভাবেনি মানুষ পঙ্গপাল ধরে বিক্রি করতে পারবে। তাই এটি করার জন্য আমাদের উপহাস করা হয়েছিল।’

মুহাম্মদ খুরশিদ জানান , তারা ইয়েমেনের একটি ঘটনা থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে পঙ্গপাল নিয়ন্ত্রণের এই পদ্ধতি বের করেন। ২০১৯ সালের মে মাসে ইয়েমেনে পঙ্গপাল হানা দিলে দেশটির কয়েকটি অঞ্চলে এমন পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়।

পঙ্গপাল ধরা খুব সহজ। এরা দিনের আলোয় চলাচল করে। আর রাতে গাছে আশ্রয় নেয় বলে জানান খাদ্য সুরক্ষা ও গবেষণা মন্ত্রণালয়ের এই কর্মকর্তা।

পাকিস্তানে ২০১৯ সালের মার্চে প্রথম পঙ্গপালের আক্রমণ হয়েছিল। পরে তা সিন্ধু, দক্ষিণ পাঞ্জাব ও খাইবার পাখতুনখাওয়ায় কমপক্ষে ৯ লাখ হেক্টর জমির ফসল নষ্ট করে। পঙ্গপাল দেশটির গাছের ফলও ক্ষতিগ্রস্ত করে। এতে কয়েক কোটি রুপির ক্ষতির মুখে পড়ে পাকিস্তান। পঙ্গপালের আক্রমণ দূর করতে পাকিস্তান সরকার গত ফেব্রুয়ারিতে জাতীয় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে।

আপনি সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ চট্টগ্রাম টুডে কর্তৃক সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews
error: Content is protected !!